• আজঃ শনিবার, ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং
  • English

হাজারো সাহাবি শুয়ে আছেন জান্নাতুল বাকির এই কবরস্থানে

জান্নাতুল বাকি পবিত্র মদিনার একটি বিখ্যাত কবরস্থানের নাম। এ কবরস্থানটি মসজিদে নববীর পূর্ব দিকে অবস্থিত।

কিন্তু কোনো কবর চিহ্নিত নেই। রাসূলুল্লাহ (সা.) এর পরিবারের অধিকাংশ সদস্য স্ত্রী, কন্যা, ছেলে ও অন্য আত্মীয়-স্বজন থেকে শুরু করে হাজার হাজার সাহাবির কবর রয়েছে জান্নাতুল বাকিতে।

ইমাম মালিক (রহ.)-এর মতে জান্নাতুল বাকিতে প্রায় দশ হাজার সাহাবির কবর রয়েছে। রাসূলুল্লাহ (সা.) প্রায়ই শেষ রাতে জান্নাতুল বাকিতে যেতেন এবং দোয়া করতেন।

দোয়ায় নবী করিম (সা.) বাকি কবরবাসীদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করতেন।

কবর জিয়ারত করা প্রত্যেক স্থানেই শরিয়তসম্মত। এ বিষয়ে রাসূলুল্লাহ (সা.) হাদিসে ইরশাদ করেছেন, ‘তোমরা কবর জিয়ারত করো, কেননা তা তোমাদের মৃত্যুকে স্মরণ করিয়ে দেবে।’ –সহিহ মুসলিম জান্নাতুল বাকিতে যাদের কবর রয়েছে তন্মধ্যে- নবী কন্যা হজরত ফাতেমা (রা.), ইসলামের তৃতীয় খলিফা হজরত উসমান (রা.), উম্মুল মুমিনিন হজরত আয়েশা (রা.), নবীর চাচা হজরত আব্বাস (রা.), নবী পুত্র হজরত ইবরাহিম (রা.), নবী দৌহিত্র হজরত হাসান (রা.), হজরত উসমান ইবনে মজউন (রা.), নবী কন্যা হজরত রোকাইয়া (রা.), ইসলামের চতুর্থ খলিফা হজরত আলী (রা.), বিখ্যাত সাহাবি হজরত আবদুর রহমান ইবনে আউফ (রা.), হজরত সাআদ ইবনে আবি ওয়াক্কাস (রা.), হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.), নবীর দুধমা হজরত হালিমা সাদিয়া (রা.) প্রমুখের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

মদিনায় অবস্থানরত হজপালনকারীদের মৃত্যু হলে এই কবরস্থানে দাফন করা হয়। সেই সঙ্গে মদিনাবাসীরা এখানে দাফনের সুযোগ পান। এখনও প্রতিদিন এখানে লাশ দাফন করা হয়।

তবে বাকি কবরস্থানে শুরুর অংশে এখন আর নতুন করে কাউকে কবর দেয়া হয় না। কারণ এসব অংশেই রয়েছে সাহাবাদের কবর। জান্নাতুল বাকী জিয়ারতের জন্য ফজর ও আসরের নামাজের পর খুলে দেয়া হয়।

তখন শুধু পুরুষরা জিয়ারতে জন্য ভেতরে যেতে পারেন। কারণ, নারীদের জন্য ইসলামি শরিয়তে কবর জেয়ারত করা বৈধ নয়।

ইসলামি স্কলারদের মতে, জান্নাতুল বাকিতে সমাহিতদের প্রতি সালাম দেয়ার সুন্নত পদ্ধতি হলো- অনির্দিষ্টভাবে সবাইকে একসঙ্গে সালাম দেয়া ও তাদের জন্য দোয়া করা।

মদিনার বয়স্ক ও অনুসন্ধানীদের কাছে জিজ্ঞেস করলে দু’একটি কবরের কথা তারা বলতে পারেন।যেমন, জান্নাতুল বাকিতে প্রবেশের মুখে আলাদা করে ঘেরাও করে রাখা কবর দু’টো।

এই দুই কবরের একটি হজরত ফাতেমা (রা.)-এর, অপরটি হজরত আয়েশা (রা.)। আর বাকি কবরস্থানের শেষের দিকে রয়েছে ইসলামের তৃতীয় খলিফা হজরত উসমান (রা.)-এর কবর

ফেসবুকে লাইক দিন

Latest Tweets

তারিখ অনুযায়ী খবর

January 2021
FSSMTWT
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031