• আজঃ বুধবার, ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং
  • English

করোনা মহামারী আশঙ্কাজনক হারে কমছে বিদেশি বিনিয়োগ

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে বিশ্বের অধিকাংশ দেশের মতো বাংলাদেশেও বিদেশি বিনিয়োগ আশঙ্কাজনক হারে কমছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি  অর্থবছরের (২০২০-২১) প্রথম চার মাসে (জুলাই-অক্টোবর) ৭২ কোটি ডলারের সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) এসেছে, যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৩১ শতাংশ কম।

২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই-অক্টোবর সময়ে ১০৪ কোটি ডলারের এফডিআই পেয়েছিল বাংলাদেশ। এই চার মাসে নিট এফডিআই কমেছে আরো বেশি; ৫০ দশমিক ১৬ শতাংশ। এ সময়ে মাত্র ১৫ কোটি ৩০ লাখ ডলারের নিট এফডিআই পেয়েছে বাংলাদেশে। গত বছরের একই সময়ে তা ৩০ কোটি ৭০ লাখ ডলার ছিল।

বিভিন্ন খাতে মোট যে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ আসে, তা থেকে বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান মুনাফার অর্থ দেশে নিয়ে যাওয়ার পর অবশিষ্ট অংককে নিট এফডিআই বলা হয়। জুলাই-অক্টোবর সময়ে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে যে বিদেশি বিনিয়োগ (পোর্টফোলিও ইনভেস্টমেন্ট) এসেছে, চলে গেছে তার চেয়ে বেশি। এই চার মাসে পুঁজিবাজারে মোট যে বিনিয়োগ হয়েছে, তার চেয়ে ১৬ কোটি ৭০ লাখ ডলার বেশি দেশে নিয়ে গেছেন বিদেশি বিনিয়োগকারীরা। অর্থাৎ, নিট এফডিআই দাঁড়িয়েছে ঋণাত্মক।

২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই-অক্টোবর সময়ে ৩ কোটি ২০ লাখ ডলারের নিট বিদেশি বিনিয়োগ এসেছিল পুঁজিবাজারে। বিদেশি বিনিয়োগের এই নাজুক অবস্থার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে অর্থনীতির গবেষক পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর বলেন, শুধু বাংলাদেশ নয়, এই মহামারীতে সব দেশেই বিনিয়োগে খরা চলছে। সবাই পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। দীর্ঘ লকডাউনের কারণে অনেক দেশের বড় বড় ব্যবসায়ী গ্রুপের মুনাফা কমে গেছে; কেউ কেউ বড় লোকসানের মুখে পড়েছে। এ অবস্থায় কেউ আর অন্য দেশে বিনিয়োগ করছে না। তার প্রভাব বাংলাদেশেও পড়েছে। এ অবস্থা কাটতে সময় লাগবে। বাংলাদেশে মার্কিন বিনিয়োগকারীদের চেম্বার অ্যামচেমের সভাপতি সৈয়দ এরশাদ আহমেদ বলেন, বাংলাদেশে এফডিআই পরিস্থিতি ‘কখনই সন্তোষজন ছিল না। গ্যাস-বিদ্যুৎ, বন্দরসহ অন্য অবকাঠামো সমস্যার কারণে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা এ দেশে বিনিয়োগ করতে তেমন আগ্রহী হতেন না। এখন এসবের অনেক উন্নতি হয়েছে। বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনসহ সরকারের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এফডিআই বাড়ার একটা অনুকূল পরিবেশও সৃষ্টি হচ্ছিল। কিন্তু মহামারী সে সম্ভাবনা শেষ করে দিয়েছে। এখন এফডিআই না বেড়ে উল্টো কমছে।

জাতিসংঘের বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সংস্থা-আঙ্কটাড গত ২৯ অক্টোবর বিশ্ব বিনিয়োগ পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সেখানে দেখা যায়, করোনাভাইরাসের মহামারীতে বিশ্বজুড়ে বিনিয়োগ ও বাণিজ্যে যে ধস নেমেছে, তার ধাক্কা উন্নত দেশ থেকে শুরু করে উন্নয়নশীল ও স্বল্পোন্নত-সব দেশের ওপরই পড়েছে। ২০২০ সালের প্রথমার্ধে (জানুয়ারি-জুন) বিশ্বে এফডিআই প্রবাহ কমেছে ৪৯ শতাংশ।

এই ছয় মাসে বাংলাদেশে ১১৬ কোটি ৪৩ লাখ ডলারের এফডিআই এসেছে, যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ১৯ শতাংশ কম। ২০১৯ সালের জানুয়ারি-জুন সময়ে ১৪৩ কোটি ৭০ লাখ ডলার এফডিআই এসেছিল।

আঙ্কটাডের প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালে বাংলাদেশে ১৫৯ কোটি ৭০ লাখ ডলারের এফডিআই এসেছিল, যা ছিল আগের ৫ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম।

২০১৮ সালে বিদেশি বিনিয়োগ এসেছিল ৩৬১ কোটি ৩০ লাখ ডলার, যা বাংলাদেশে এক বছরে সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ।

এর মধ্যে বড় অঙ্কের বিনিয়োগ করে জাপানের কোম্পানি জাপান টোব্যাকো। আকিজ গ্রুপের তামাক ব্যবসা কেনা বাবদ প্রায় ১৫০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করেছিল তারা।

ফেসবুকে লাইক দিন

Latest Tweets

তারিখ অনুযায়ী খবর

January 2021
FSSMTWT
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031