• আজঃ বৃহস্পতিবার, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে নভেম্বর, ২০২০ ইং
  • English
ব্রেকিং নিউজঃ

এবার সাইপ্রাসে বিতর্কিত সফরে গিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট

এবার সাইপ্রাসে বিতর্কিত সফরে গিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান বলেছেন, বিভক্ত এই দ্বীপ দেশটির লক্ষ্য হওয়া উচিত দুটি আলাদা রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা নিয়ে আলোচনা করা।

রবিবার (১৫ নভেম্বর) তিনি বলেছিলেন, সাইপ্রাসে দুই ধরনের মানুষ আর দুটি আলাদা রাষ্ট্র।

ফলে দুটি আলাদা রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাকে ভিত্তি করে একটি সমাধানে পৌঁছানোর লক্ষ্যে অবশ্যই আলোচনায় বসা উচিত।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, ১৯৭৪ সালে তুরস্কের আগ্রাসনের পর সাইপ্রাসের বিভাজন তীব্র হয়ে পড়ে।

সাইপ্রাস দ্বীপপুঞ্জের দক্ষিণাঞ্চলের দুই-তৃতীয়াংশতেই গ্রিক ভাষাভাষী মানুষের বসবাস।

গুরুত্বপূর্ণ এই অঞ্চলটিকে নিয়ে গঠিত হয়েছে রিপাবলিক অব সাইপ্রাস। যেটি ২০০৪ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদস্যভুক্ত হয়।

আর বাকি অংশ নিয়ে গঠিত হয়েছে তার্কিশ রিপাবলিক অব নর্দার্ন সাইপ্রাস।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এর অস্তিত্ব স্বীকার না করলেও কেবল আঙ্কারাই দেশ হিসেবে তাদের স্বীকৃতি দিয়েছে।

অতীতে অঞ্চল দুটির পুনরেকত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা হলেও কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি।

পূর্ব ভূমধ্যসাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান নিয়ে সাইপ্রাসের সঙ্গে তুরস্কের তীব্র উত্তেজনার মধ্যে উত্তর সাইপ্রাস সফরে যান এরদোগান।

এই সফরে বিরোধপূর্ণ বিচ এলাকা ভরোসা এবং দুই দ্বীপকে বিভক্তকারী জাতিসংঘের বাফার জোনও পরিদর্শন করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট।

‘জো বাইডেন আমার বউ চুরি করেছে’ সফরে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান পূর্ব ভূমধ্যসাগরের বিরোধ নিয়েও কথা বলেন।

তিনি দাবি করেন, কোনো ধরনের কারণ ছাড়াই ওই অঞ্চলে উসকানি তৈরি করছে রিপাবলিক অব সাইপ্রাস।উল্লেখ্য, গত মাসে উত্তর সাইপ্রাসের নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন এরদোগান সমর্থিত এরসিন তাতার।

তুর্কি জাতীয়তাবাদী এই নেতা নির্বাচিত হওয়ায় দুই সাইপ্রাসের পুনরেকত্রীকরণ আরও দূরে সরে গেছে বলে মনে করছেন অনেকেই।

অবশেষে হার মানলেন ট্রাম্প সর্বশেষ দুই সাইপ্রাসের পুনরেকত্রীকরণ নিয়ে আলোচনা ব্যর্থ হয়ে যায় ২০১৭ সালে।

জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় ওই আলোচনা শুরু হলেও শেষ পর্যন্ত তা কোনো ফল বয়ে আনতে পারেনি।

ফেসবুকে লাইক দিন

Latest Tweets

তারিখ অনুযায়ী খবর

November 2020
FSSMTWT
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930