• আজঃ শুক্রবার, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং
  • English

পদ্মা সেতু প্রকল্পের চীনা কর্মীরা করোনায় আক্রান্ত নয়

পদ্মা সেতু প্রকল্পে নিয়োজিত ৩৩২ জন চীনা কর্মী ছুটিতে গিয়েছেন। মোট কর্মরত ৭১৩ জনের মধ্যে ছুটিতে যাওয়ারা কেউই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নন। তারা চীনা নববর্ষ পালনের জন্য নিজ দেশে গিয়েছেন। তবে সর্বোচ্চ সতকর্তার কারণে তারা ফিরছেন না। এমনটি জানিয়েছেন মধ্যে পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের।

তবে তারা শীঘ্রই কাজে যোগ না দিলে সেতুর কাজে ধীর গতি চলে আসবে বলেও আশঙ্কার কথা জানালেন তিনি। গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘চীনের উহানে পদ্মা সেতুর হেড অফিস। কাজেই কর্মচারীরা উহানের পাশ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দা। ছুটি কাটাতে যারা দেশে গিয়েছিলেন তাদের মধ্যে ৩৩২ জন এখনও কাজে ফিরতে পারেননি। আগামী ১০-১৫ দিনের মধ্যে না ফিরলে পদ্মা সেতুর কাজের গতি কমে যাবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘৩৩২ জনের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হয়েছে। এখানে যে চীনা কর্মীরা আছেন তারাই বিভিন্ন মাধ্যমে নিয়মিত যোগাযোগ করছেন। তবে তারা কেউই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হননি।

তবে করোনা ভাইরাসের কারণে চীনে এখন যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তাতে তাদের নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। আবার নিজে আক্রান্ত না হলেও যদি কারও কোন স্বজন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকেন, তাহলে তাদের মন খারাপ থাকবে। এখানে কাজ করলেও তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন থাকবেন, এটাই স্বাভাবিক। এতে করে কাজে তাদের পুরোপুরি মন বসবে না।’

চীনারাও বিকল্প উপায় খুঁজছে যেন পদ্মা সেতুর কাজের গতি কমে না যায় এমনটি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘স্থানীয়দের বেশি করে কাজে যুক্ত করা বা অন্য দেশ থেকে কর্মী এনে কাজ করানো যায় কিনা সেটাও চীনারা চিন্তা ভাবনা করছে।’

আগামীকাল ২১ ফেব্রুয়ারি সেতুর ২৫ তম স্প্যান বসানোর কথা রয়েছে। তাছাড়াও সেতুর বাকি ১০, ১১, ২৬ এবং ২৭ এই চারটি পিয়ারের কাজ শেষ পর্যায়ে।

ফেসবুকে লাইক দিন

Latest Tweets

তারিখ অনুযায়ী খবর